poems by Bitasta Ghoshal

বাংলা English

 বিতস্তা ঘোষাল 
   গল্পকার, কবি,প্রাবন্ধিক  ও অনুবাদক। জন্ম ৫ জানুয়ারি,  কলকাতায়। ইতিহাসে এম এ, লাইব্রেরি সায়েন্সে বিলিস। কলেজে সাময়িক অধ্যাপনা। অনুবাদ সাহিত্যের একমাত্র পত্রিকা ‘অনুবাদ পত্রিকা’-র সম্পাদক। ভাষা সংসদের কর্ণধার। ‘বাংলা আকাডেমি’, ‘একান্তর কথা সাহিত্যিক’, ‘চলন্তিকা’ সহ একাধিক পুরস্কারপ্রাপ্ত। বিতস্তার প্রকাশিত বই ২৭টি। তাঁর কবিতা হিন্দি, ওড়িয়া, অসমিয়া ও ইংরেজিতে অনুবাদ হয়েছে। তার প্যাশন নাচ। 

  তৃষ্ণার্ত
  
 বিতস্তা ঘোষাল
  
  
  
 ছায়াহীন এক শরীর ঘুরে বেরায় এঘর থেকে ওঘর
  
 তার নিঃশ্বাস, পায়ের শব্দ,
  
 এমনকি নাভি থেকে ভেসে আসা গন্ধও চেনা।
  
 অথচ মুখ দেখতে পাই না,
  
 বার বার চাই তাকে স্পর্শ করতে
  
 তার সঙ্গে গল্প করতে
  
 চোখের দিকে তাকাতে 
  
  
 আমি চিৎকার করি-আমার কথা শুনতে পাচ্ছ?
  
 আমাকে স্পর্শ করবে?বসবে পাশে এসে?
    
 
  উত্তর আসে না।
  
 কেবল হলুদ দেওয়াল আর নীল আলোর মধ্যে কাটাকুটি চলে।
  
 তার কায়াহীন শরীর সেখানেই স্বচ্ছন্দ।
   
 ফেলে আসা শব্দেরা
  
  বিতস্তা ঘোষাল 
  
  
  
 আজকাল খুব ছোটো বেলার কথা মনে পড়ে 
  
 বয়স হচ্ছে বোধহয়-ভীষণ ইচ্ছে করে পুরোনো পাড়াটায় যাই-
  
 জানলার ধারে দাঁড়িয়ে প্রতীক্ষা করি
  
 কখন ফেরিওয়ালা আসবে সুর তুলে..
  
 আমি বলব-শুনছো...এদিকে এসো,কুড়ি পয়সার ঘটি গরম দাও না...
  
 মা রান্না করতে করতে বলবে,আবার বাইরের খাবার! এতো বারণ করি.. 
  
  
  
 যখন বৃষ্টি পড়ে আকাশ ভেঙে, দেখি -
  
 একটা কাগজের নৌকা জানলা দিয়ে গিয়ে পড়ল জমা জলে
  
 নদী থেকে সাগর হয়ে ভাসতে ভাসতে
  
 চলল অজানার সন্ধানে
  
 যতদূর দেখা যায় ঘাড় কাত করে দেখি
  
  
  
 কোথায় গিয়ে হারিয়ে গেল সে?
  
 সেখানেই কি আমার ছোটোবেলা শেষ? 
  
  
  
 ওই যে মিত্র বাড়ির কাচগুলো, বল নিতে গিয়ে যেই নিচু হয়েছি
  
 বুকের মধ্যে ঢুকে গেল 
 
  মাগো!কত রক্ত!  
 
 
 ভয় করেনিতো সেদিন!
  
  
  
 অথচ জায়গাটায় ক্ষতচিহ্ন রয়ে গেল,
  
 যতবার নগ্ন হই দেখি 
  
 ভাবি ওখানেই কি শেষ হল ছোটো বেলা!
  
  
  
 আমার কি ছোটোবেলা ছিল?
  
 নাকি আমি বড় বেলা থেকে ছোটো হতে চাইছি!
   
   
   
  মগ্নতা
  
 বিতস্তা ঘোষাল
  
  
  
 অনন্ত সময় ধরে বসে
  
 তুমি কি কিছু বলছ
  
 নাকি আমি কিছু শুনছি!
  
 তোমার ঠোঁট নড়ছে,
  
 কোনও শব্দ ছাড়াই 
  
 আমি সেই ঠোঁট দেখছি চশমার আড়াল থেকে
  
  
  
 তুমি কাকে বলছ!কে শুনছে!
  
  
  
 সব কথাই তো ধোঁয়ার মতো ভেসে যাচ্ছে 
  
 অন্য কোনো আকাশে।
  
  
  
 আমি একবার তোমাকে দেখছি,
  
 আরেকবার ধোঁয়া...
  
   

© All rights reserved by Torkito Tarjoni

2 comments

  • অনিন্দ্য পাল

    খুব ভালো লাগলো কবিতাগুলো
    বড় মাটির কাছাকাছি নিয়ে গেল
    ছোটবেলার গন্ধ আবার মন কেমন করে দিয়ে গেল।
    অসাধারণ।

  • কবিতা আমার কাছে খুব ভীতিকর জিনিস ঠাওর হয়। কারণ ছোট পরিসরে এর অন্তর্নিহিত অর্থের সীমা নেই।
    তবু, ব্যাক্তিগত ভাবে, ‘ ফেলে আসা শব্দেরা ‘ এক ঝলকেই মনের জায়গা করে নিল। কবিতাটা ছোট বেলাকার বিচরণক্ষেত্র বা কার্যকলাপ গুলোর স্মৃতি এক লহমায় উসকে দিল। খুব কষ্ট হয় যখন ভাবি সেগুলোর কোনভাবেই আর পুনর্নির্মাণ সম্ভব নয়। কারণ, ছোটবেলার সেই জায়গাগুলো বিশ্বায়নের সাঁড়াশি চাপে উধাও হয়ে গেছে, আর সেই কার্যকলাপ গুলো করতে গেলে বয়সজনিত উৎকণ্ঠা পায়ে বেড়ি পড়িয়ে দেবে।
    তবে, সার্বিকভাবে সব কবিতাতেই নিগুঢ় এক দার্শনিক ছোঁয়া পাই। অনেক শুভেচ্ছা রইল।🌼

Leave a Reply

Your email address will not be published.